মজুরির বাটোয়ারা নিয়ে বচসা, প্রাণ গেল দিনমজুরের

এনএফবি,দক্ষিণ দিনাজপুরঃ

মজুরির টাকার ভাগ নিয়ে প্রাণ গেল এক দিনমজুরের। দৈনিক পরিশ্রমের মজুরির ভাগাভাগি নিয়ে বন্ধুর বাবার লাঠির আঘাতে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির। মৃতের নাম সুদীপ দাস (৩২)। দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জ থানার ব্রহ্মপুর গ্রামে ঘটেছে ঘটনা।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, পাঁচজন দিনমজুর একটি জমিতে চুক্তি ভিত্তিক পাট কাটার কাজ করে। প্রথম দিন পাঁচজনে কাজ করলেও দ্বিতীয় দিন মাত্র দুইজন সুদীপ ও ঝন্টু কাজে যায়। জমির মালিক তাদের মজুরি দিলে, বাচ্চু, গোবিন্দ এবং নন্দ কাজে না অনুপস্থিত থাকলেও গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সুদীপের কাছে মজুরির ভাগ চায়। যেহেতু তারা কাজে যায়নি, সে কারণে সুদীপ টাকা দিতে অরাজি হয়। অভিযোগ এরপর তিনজনে মিলে সুদীপকে মারধর করে। এর মধ্যেই ঘটনাস্থলে এসে বাচ্চুর বাবা সদানন্দ দাস সুদীপের মাথায় শাল কাঠের বাটাম দিয়ে আঘাত করে। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়ে সুদীপ। তাকে বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার সুদীপের অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকেরা তাকে মালদা মেডিকেল কলেজে স্থানান্তরিত করে। মালদা নিয়ে যাওয়ার পথেই রাত দেড়টা নাগাদ মৃত্যু হয় সুদীপের। এদিন শুক্রবার বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে মৃতের ময়নাতদন্ত করা হয়।

পরিচয় পত্র

পরিবারের পক্ষ থেকে কুমারগঞ্জ থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ এ ঘটনায় বাচ্চুর বাবা সদানন্দ দাস কে গ্রেফতার করেছে। মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযুক্ত আরও তিন বন্ধুকেও গ্রেফতারের দাবি উঠেছে।

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.