ডার্বির আগে ভবানীপুর ম্যাচে হার লাল হলুদের

স্পোর্টস ডেস্ক, এনএফবিঃ

আগামী শনিবার আইএসএল ডার্বির আগে শেষ ম্যাচ ছিল কলকাতা লিগের ভবানীপুর ম্যাচ। কিন্তু প্রয়োজনীয় অক্সিজেন তুলতে ব্যর্থ ইস্টবেঙ্গল। এদিন কল্যাণীতে ভবানীপুরের কাছে ২-০ গোলে হার মানলো ইমামি ইস্টবেঙ্গল। একইসঙ্গে কলকাতা লিগ জয়ের স্বপ্ন পাকাপাকিভাবে বন্ধ হয়ে গেলো শতবর্ষ প্রাচীন ক্লাবের। ফুটবলে একটা কথা আছে খেলার প্রথম ১৫ মিনিট মাঝমাঠ যার ম্যাচ তার। সেখানেই বাজিমাত করল সৃঞ্জয় বসুর ক্লাব ভবানীপুর। একইসঙ্গে ইস্টবেঙ্গলের ছন্নছাড়া ডিফেন্স তো আছেই যা ম্যাচের প্রথম থেকেই নজরে পড়ে। আইএসএলের ৩ জন ফুটবলারকে এ দিন ইস্টবেঙ্গল দলে রাখে। কোচিংয়ে ছিলেন লাল হলুদের সহকারী কোচ বিনো জর্জই। রঞ্জন চৌধুরীর ভবানীপুর ম্যাচের শুরুতেই আক্রমণ নির্ভর ফুটবল খেলে। তার ফলও পাওয়া যায় এদিন ম্যাচের ২৩ মিনিটে ওপেন ক্লিয়ারেন্স নিয়ে ভবানীপুরের জিতেন মুর্মু গোল করে যান। গোল পেয়ে ভবানীপুর যেন আরও আক্রমন বাড়িয়ে দেয় খেলায়। ম্যাচের ৩০ মিনিটে জিতেন মুর্মুর জোড়ালো শট সুন্দরভাবে সেভ করেন সুরেশ। ইস্টবেঙ্গল কোনো সুযোগই তৈরী করতে পারেনি। ম্যাচের প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার একদম শেষদিকে কিংশুক দেবনাথ লাল হলুদ বক্সে গিয়ে আর একবার গোলের জায়গা তৈরী করে। কিন্তু গোল হয়নি। প্রথমার্ধে শেষ হয় ১-০ ব্যবধানে।দ্বিতীয়াধেও লাল হলুদ দলের আক্রমণের সেই ছন্দ খুঁজে পাওয়া যায়নি। ৫২ মিনিটে সঞ্জীব ঘোষ কর্নার থেকে একবার সুযোগ পেলেও সেটায় গোল আসেনি। ৬৬ মিনিটে গোলের ব্যবধান বাড়াতে পারত ভবানীপুর। গোল করেন ফের জিতেন মুর্মু। কিন্তু ক্রিজোর হাতে লাগলে রেফারি গোল বাতিল করেন। এভাবে ম্যাচ চলতে থাকে। ম্যাচের শেষ লগ্নে ফের গোলের সুযোগ তৈরী করেন ভবানীপুরের জিতেন মুর্মু। কিন্তু লাল হলুদের গোলকিপার সুরেশ জয়সয়াল দক্ষতার সঙ্গে সেভ করেন। তবে ভবানীপুরের ক্রিজো ৭৩ মিনিটে অসাধারণ গোল করে যান। ইস্টবেঙ্গল ২ গোল খেয়ে ব্যাকফুটে চলে যায়।২-০ গোলে জয় দিয়ে মাঠ ছাড়ে ভবানীপুর।

এ দিন কল্যাণীতে দর্শকদের মাঠে ঢোকা নিয়ে বিতর্ক তৈরী হয়। তবে সবকিছুকে উড়িয়ে দিল ইস্টবেঙ্গলের ডার্বির আগে হার। যা ডার্বির আগে কিছুটা হলেও চাপে ফেলল শতবর্ষ প্রাচীন ক্লাবকে।ইস্টবেঙ্গলের প্রথম একাদশ -সুরেশ জয়সয়াল, এমডি রাকিব,অংশুমান ওয়াহিংবাম, প্রীতম কুমার, অমরজিত সিং, নবি হুসেন খান, অতুল উন্নীকৃষ্ণন, জেসিন টিকে, সঞ্জীব ঘোষ,দীপ সাহা, বিষ্ণু টি এম।

ভবানীপুর প্রথম একাদশ -শুভম রায়, কিংশুক দেবনাথ, ইচেজোনা, অভিনব বাগ, মনোরঞ্জন সিং, রানা ঘরামি, সত্যম শর্মা, নিখিল কদম, সুজয় দত্ত, ক্রিজো, জিতেন মুর্মু।

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।