বধূর মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য চন্দ্রকোনায়

এনএফবি,পশ্চিম মেদিনীপুরঃ

বাড়ির ভিতর অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে গৃহবধূর মৃতদেহ, ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ালো গোটা এলাকায় ৷ এমনই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা পুরসভার ৮ নং ওয়ার্ড জয়ন্তীপুরে।

জানাযায়,সোমা পাল(২৬) নামের গৃহবধূ ও তার আড়াই বছরের কন্যা সন্তানকে নিয়ে একাই বাড়িতে থাকতেন।মহিলার স্বামী গোবিন্দ পাল (৩২) পেশায় সোনার কারিগর, মুম্বাইতে থাকেন। সোমবার সকাল থেকেই সোমা পালের কোনও সাড়া শব্দ মেলেনি এবং বাড়ির বাইরেও বেরোয়নি। এইদিন সকালে সোমা পালের বাড়িতে গোয়ালা দুধ দিতে যায় এবং কারও সাড়া শব্দ না পেয়ে ফিরে যায়। এইদিকে বাড়িতে আড়াই বছরের মেয়ে মায়ের আওয়াজ না পেয়ে সকালে কান্নাকাটি করতে থাকে।এরপরই প্রতিবেশী এক মহিলা সোমা পালের বাড়িতে যায় কি হয়েছে দেখতে,বাড়ির দরজা খুলে ভিতরে ঢুকতেই ওই মহিলার নজরে আসে পুরো ঘটনাটি।বাড়ির ভিতরে খাটের নিচে অচৈত্য অবস্থায় পড়ে গৃহবধূ সোমা পাল।প্রতিবেশী মহিলা ঘটনাটি পাশাপাশি বাড়ির সকলকে জানায়।এরপরই মৃত মহিলার বাড়িতে ভিড় জমে যায়।

খবর দেওয়া হয় চন্দ্রকোনা থানার পুলিশকে ৷ ঘটনাস্থলে চন্দ্রকোনা থানার ওসি সহ পুলিশ পৌঁছায়। মৃত মহিলার গলায় রয়েছে আঘাত ৷ তার পাশেই পড়ে সিগারেট ও মদের বোতল আর এতেই ঘনাচ্ছে রহস্য। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। তবে কি কারণে মৃত্যু হয়েছে ময়নাতদন্তের পরই প্রকৃত কারণ জানা সম্ভব হবে বলে জানায় পুলিশ।

তবে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান মহিলাকে খুন করা হতে পারে। খবর দেওয়া হয়েছে মৃত মহিলার স্বামী গোবিন্দ পালকে। মৃত সোমা পালের বাপের বাড়ি ঘাটাল থানার মনোহরপুরে ৷ তাদেরও খবর দেওয়া হয়েছে । প্রতিবেশীদের কথায়,মৃত সোমা পাল তার আড়াই বছরের মেয়েকে নিয়ে একাই থাকতো,প্রতিবেশীদের সাথে তেমন কোনও সম্পর্ক ছিলনা।বাড়িতে স্বামী না থাকলেও মাঝে মধ্যে বাড়িতে অচেনা লোকের আনাগোনা ছিল বলে সূত্রের খবর। পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখে তদন্ত শুরু করেছে চন্দ্রকোনা থানার পুলিশ ৷ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।


খবরটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করুন

নিউজফ্রন্ট বাংলার এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 95936 66485

Leave a Reply

Your email address will not be published.