ভুলকে ভুল বলে-নিচুতলার কর্মীদের কোন্দলে না জড়ানোর বার্তা দেবের

পশ্চিম মেদিনীপুর, এনএফবিঃ

কেন্দ্রীয় সামাজিক ন্যায় ও অধিকার মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন ঘাটালের সাংসদ দেব। ঘাটাল মহকুমার বিভিন্ন জায়গায় শিবির করে প্রতিবন্ধীদের শনাক্ত করা হয় প্রশাসনের তরফে। অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে সেই সমস্ত প্রতিবন্ধীদের হাতেই সহায়ক সরঞ্জাম তুলে দিলেন অভিনেতা সংসদ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা শাসক আয়েশা রানী, জেলা পুলিশ সুপার দিনেশ কুমার, মহকুমাশাসক সুমন বিশ্বাস, সমাজসেবী আশিষ হুদাইত-সহ জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা।

এ দিন বিকেল নাগাদ দাসপুরের চাঁইপাটে এম পি কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের অনুষ্ঠানে যোগ দেন ঘাটালের সাংসদ তথা অভিনেতা দেব। তাঁকে দেখতে ভিড় জমিয়েছিল তাঁর অগণিত ভক্তরা।

এই অনুষ্ঠানের শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে নানা ধরনের প্রশ্নের খোলামেলা উত্তর দেন দেব।
বন্দে ভারতে ঢিল ছোঁড়া প্রসঙ্গেও মন্তব্য করেন সাংসদ দেব। বলেন, “শিক্ষার অভাবে ট্রেনে ঢিল মারা হয় কিংবা আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। এটি তো মোদী বা দিদির ট্রেন নয়। এটি রাজনৈতিক বাহনও নয়।”

আবাস দুর্নীতি নিয়ে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। এই ইস্যু নিয়ে রাজ্যের শাসক দলকে লাগাতার আক্রমণ শানাচ্ছে বিরোধীরা। এই নিয়ে মুখ খুললেন তৃণমূলের তারকা সাংসদ দেব ওরফে দীপক অধিকারী। জানালেন, দলমত নির্বিশেষে যেটা ভুল, সেটা ভুলই। আর সেই প্রসঙ্গে তিনি ছুঁয়ে গেলেন রাজনৈতিক সৌজন্যের কথাও। বিজেপি নেতা মিঠুন চক্রবর্তীর সঙ্গে নিজের সুসম্পর্কের কথা তুলে ধরে দলীয় নেতাকর্মীদের বার্তা দিলেন দেব।

এইদিন ঘাটালের দাসপুরে বেশ কয়েক’টি কর্মসূচিতে যোগ দেন অভিনেতা-সাংসদ দেব। সেখানে রাজ্য রাজনীতির একাধিক বিষয়ে বলতে গিয়ে নিজের দলকেও ‘রেয়াত’ করেননি তিনি। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে চলা আবাস যোজনায় দুর্নীতি প্রসঙ্গে দেব বলেন, ‘‘যাঁদের পাকা বাড়ি আছে, তাঁরা অনেকে পেয়ে যাচ্ছে (সরকারি প্রকল্পের সুবিধা)। অথচ, যাঁদের মাথায় ছাদ নেই, তাঁরা পাচ্ছেন না! এটা তো ভুল।’’ তাঁর সংযুক্তি, ‘‘আমার দলই হোক বা অন্য কোনও দল, যেটা ভুল সেটা ভুলই।’’

অভিনেতা-রাজনীতিক মিঠুন চক্রবর্তীর সঙ্গে নিজের সম্পর্কের কথা উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরেন দেব। বলেন, ‘‘আমি আর মিঠুনদা যদি বাবা-ছেলের মতো থাকতে পারি, তা হলে সাধারণ মানুষ বা গ্রামের মানুষেরা কেন লড়াই করছেন!’’ উল্লেখ্য, মিঠুন এবং দেব রাজ্য রাজনীতির দুই যুযুধান রাজনৈতিক শিবিরের প্রতিনিধিত্ব করছেন। কিছু দিন আগে দেব এবং মিঠুনের ছবি ‘প্রজাপতি’ মুক্তি পেয়েছে। ছবিটিতে বাবা-ছেলের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন মিঠুন এবং দেব। দুই বিপরীত দলের দুই নেতার এক ছবিতে কাজ করা নিয়ে বিতর্কও হয়। তবে সন্তর্পণে সেই বিতর্ক এড়িয়েছেন তৃণমূল সাংসদ।
সোমবার দেব বলেন, ‘‘রাজনীতি মানে তো মানুষের পাশে থাকা। আপদে-বিপদে পাশে থাকা। রাজনীতির জন্য মারপিট, রক্তারক্তি নয়। আমি ওই রাজনীতিতে বিশ্বাস করি না।’’ শাসক দলের গোষ্ঠীকোন্দল প্রসঙ্গেও একই কথা জানান তিনি। বলেন, ‘‘একটা দল করলে অপর দল শত্রু, এমনটা ভাবা উচিত নয়।’’ সেই সঙ্গে দলের নীচুতলার কর্মীদের কোন্দলে না জড়ানোর বার্তা দেন তিনি।

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।