দু’গোল করে চার গোল খেয়ে যুবভারতীতে লজ্জার হার ইস্টবেঙ্গলের

স্পোর্টস ডেস্ক, এনএফবিঃ

ইস্টবেঙ্গলের পক্ষেই বোধহয় সম্ভব! দু’গোলে এগিয়ে থেকে চার গোল খাওয়া। এদিন যুবভারতীতে ওড়িশা এফসি’র বিরুদ্ধে এমন ফলাফল করেই মাঠ ছাড়ল লাল হলুদ ব্রিগেড। বেঙ্গালুরু এফসি ম্যাচ জেতার পরে এ দিন প্রথম থেকেই দাপট ছিল ইস্টবেঙ্গল দলের। ২৩ মিনিটে গোল করে ইস্টবেঙ্গলকে এগিয়ে দিলেন সেমবই হাওকিপ। সুহের ডানদিক থেকে বল বাড়িয়েছিলেন। প্রায় আনমার্কড অবস্থায় হাওকিপ বল জালে পাঠিয়ে দেন। ৩৫ মিনিটে দ্বিতীয় গোল তুলে নিল ইস্টবেঙ্গল।
এবারও বল বাড়িয়েছিলেন সেই সুহের। এবার বাঁদিক থেকে আসা বলে ফিনিশ করেন মহেশ সিং। প্রথমার্ধ শেষ হয় ২-০ ব্যবধানে।

দ্বিতীয়ার্ধে যেন উল্টে দেখুন পাল্টে গেছে লাল হলুদ রঙ। দুই মিনিটের ব্যবধানে দুটো গোল করে গেল পরিবর্ত হিসেবে নামা ওড়িশার স্প্যানিশ স্ট্রাইকার পেড্রো মার্টিন। দুটো ক্ষেত্রেই বল বাড়িয়েছিলেন ব্রাজিলীয় মরিসিও। তার ওপর ইস্টবেঙ্গলের কিরিয়াকু মাথায় চোট পেয়ে উঠে গেলেন। বদলি হিসেবে এলেন লিমা। এর ফলে মিডফিল্ড অঞ্চলে খেলা ধরে নিল ওড়িশা। উল্টে ৬৫ মিনিটে তিন নম্বর গোল করে এগিয়ে গেল ওড়িশা। বাঁদিক থেকে আসা ক্রস হেড করে গোল করে গেলেন জেরি। দুটি গোলে এগিয়ে থেকে পিছিয়ে পড়তে হবে ঘরের মাঠে হয়তো ভাবতে পারেননি স্টিফেন কনস্ট্যানটাইন।

খেলার পুরো নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলল ইস্টবেঙ্গল। ৭৫ মিনিটে তিনটে পরিবর্তন করে ইস্টবেঙ্গল। এলিয়ান্ডর, হিমাংশু এবং সার্থককে নিয়ে আসলেন স্টিফেন। কিন্তু ৭৫ মিনিটে চতুর্থ গোল করে গেল ওড়িশা। গোল করলেন নন্দকুমার। হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়লো যুবভারতীর লাল হলুদ সমর্থকরা।