বিশ্ব ফুটবলে চোকার্স হয়েই থাকলো ইংল্যান্ড, সেমিতে গতবারের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স

স্পোর্টস ডেস্ক, এনএফবিঃ

ফুটবল বিশ্বকাপে চোকার্স তকমা অক্ষত থাকলো ইংল্যান্ডের। গত বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের কাছে ২-১ গোলে হেরে সেমিতে যাওয়ার রাস্তা বন্ধ ব্রিটিশদের। এ দিনের খলনায়ক অবশ্যই পেনাল্টি মিস করা ইংল্যান্ডের হ্যারি কেন। তা বলে ফরাসিদের লড়াই কোনো মতে অস্বীকার করার উপায় নেই। এদিনের ম্যাচ প্রথম থেকে হাড্ডাহাড্ডি হয়। কেউ কাউকে এক ইঞ্চি জমি ছেড়ে দেয়নি। ম্যাচের শুরুতেই ১১ মিনিটে এগিয়ে যেতে পারত ফ্রান্স। গ্রিজম্যান ডানদিকে বল দেন ডেম্বেলেকে। ডেম্বেলের ক্রসে হেড করেছিলেন জিরৌড। বল সরাসরি চলে যায় ইংল্যান্ড গোলকিপার পিকফোর্ডের হাতে। ১৬ মিনিটেই গোল পায় ফ্রান্স। বাঁদিক থেকে বল ধরে এগিয়ে গিয়ে ভেতরে ঢুকে এমবাপে বল দেন ডানদিকে ডেম্বেলেকে। ডেম্বেলের থেকে বল পেয়ে গ্রিজম্যান স্কোয়ার পাস খেলেন পেছন থেকে উঠে আসা চৌমেনির উদ্দেশ্যে। বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া বাঁপায়ের দুরন্ত শটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন চৌমেনি। পিছিয়ে পড়ে আক্রমণে ঝাঁপিয়ে পড়ে ইংল্যান্ড। ২০ মিনিটে সমতা ফেরানোর সুযোগ এসেছিল ইংল্যান্ডের সামনে। লুক শ–র ফ্রিকিক সরাসরি চলে যায় হুগো লরিসের হাতে। পরের মিনিটেই হ্যারি কেনের শট আটকে নিশ্চিত গোল বাঁচান লরিস। ২৯ মিনিটে আবার অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠেন ফরাসি গোলকিবক্সের মাথা থেকে ডানপায়ে দুরন্ত শট নিয়েছিলেন হ্যারি কেন।

প্রথমার্ধে ফ্রান্স ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে শুরু শেষ করে।দ্বিতীয়ার্ধে অবশেষে ৫৩ মিনিটে পেনাল্টি থেকে সমতা ফেরায় ইংল্যান্ড। বুকায়ো সাকা বল নিয়ে বক্সে ঢুকলে তাঁকে ট্যাকেল করেন চৌমেনি। রেফারি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন। লরিসকে উল্টোদিকে ফেলে ডানপায়ের জোরালো শটে গোল করে দলকে লড়াইয়ে ফেরান ইংল্যান্ড অধিনায়ক হ্যারি কেন। ৭৭ মিনিটে জিরৌডের একটা প্রয়াস দারুণ দক্ষতায় রুখে দেন পিকফোর্ড। তবে পরের মিনিটেই আর দলের পতন রোধ করতে পারেননি ইংল্যান্ড গোলকিপার।

বাঁদিক থেকে গ্রিজম্যানের সেন্টারে হেডে পিকফোর্ডকে পরাস্ত করে ফ্রান্সকে এগিয়ে দেন জিরৌড। ৮১ মিনিটে মাউন্ট ম্যাসনকে বক্সের মধ্যে ফাউল করেন হার্নান্ডেজ। রেফারি ‘‌ভার’‌–এর সাহায্যে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন। হ্যারি কেনের শট বারের ওপর দিয়ে উড়ে যায়। শেষ দিকে সমতা ফেরানোর জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে ইংল্যান্ড। কিন্তু ফ্রান্সের রক্ষণব্যুহ ভেদ করতে পারেননি রাহিম স্টার্লিং, মাউন্ট ম্যাসনরা।

ম্যাচের একেবারে অন্তিম মুহূর্তে বক্সের বাইরে ফ্রিকিক পেয়েছিল ইংল্যান্ড।র‌্যাশফোর্ডের দুরন্ত ফ্রিকিক বারের ওপর দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ায় স্বপ্নভঙ্গ হয়ে যায়। হতাশায় বিশ্বকাপ থেকে বিদায় ব্রিটিশদের। সেমিতে মরক্কোর সামনে এমবাপেরা।

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।