সমর্থকদের হতাশ করব না- জানালেন হুগো

স্পোর্টস ডেস্ক, এনএফবিঃ

আগামী শনিবার আইএসএল। কলকাতার বিবেকানন্দ যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে ডার্বি। আর সেখানে সবুজ মেরুন সমর্থকদের হতাশ না করার আশ্বাস দিলেন এটিকে মোহনবাগানের তারকা মিডফিল্ডার হুগো বুমোস।

মাঝে আর মাত্র দু’টি দিন। তার পরেই ভারতীয় ফুটবলের সবচেয়ে জনপ্রিয় ম্যাচটি হতে চলেছে শহরে। এই ম্যাচের জন্য গত দু’সপ্তাহ ধরে প্রস্তুতি নিচ্ছে সবুজ-মেরুন শিবির।

এদিন এই ফরাসি তারকা জানালেন, “কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে ভাল ফলের পরে আমরা আত্মবিশ্বাসী। ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে ডার্বি অন্যান্য ম্যাচের থেকে আলাদা, স্পেশ্যাল। এ বার আমরা সমর্থকদের সামনে খেলব। ফলে ম্যাচটা খুবই উত্তেজনাপূর্ণ হবে মনে হচ্ছে। আমরা এই ম্যাচে ভাল খেলার জন্য তৈরি।”

ভরা গ্যালারির সামনে খেলা দারুন অভিজ্ঞতা। প্রচুর সমর্থক আসবেন গ্যালারিতে। তাদের খুশি করার জন্য আমাদের দারুন একটা ম্যাচ উপহার দিতেই হবে। সবার সঙ্গে দেখা হবে এবং শুরু থেকে আমাদের সমর্থন করার জন্য প্রত্যেককে ধন্যবাদ। আশা করি, আমরা আপনাদের হতাশ করব না।”

ভরা গ্যালারিতে গত ডুরান্ড কাপে খেললেও তার আগে টানা দু’বছর ফাঁকা গ্যালারিতে গোয়াতে কলকাতা ডার্বি হয়।

দর্শকহীন গ্যালারির সামনে ও ভরা গ্যালারির সামনে খেলার তফাৎ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “অনেক ফারাক রয়েছে। ফাঁকা গ্যালারির সামনে ডার্বির আসল অনুভূতি উপলব্ধি করা যায় না। কিন্তু ডুরান্ড কাপে যে অভিজ্ঞতা হয়েছিল, তা এক কথায় অসাধারণ ও চিরস্মরণীয়। আমরা সে দিন নিজেদের সেরাটা দিতে না পারলেও জিতেছিলাম। এ বার সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব এবং সমর্থকদের খুব ভাল স্টাইলের ফুটবল উপহার দেওয়ার চেষ্টা করব।”

মুম্বই সিটি থেকে ২০২০ সালে এটিকে মোহনবাগানে আসেন হুগো ৭৭ ম্যাচে ২৪টি গোল আছে যার মধ্যে ৩০টি অ্যাসিস্ট রয়েছে।

সবুজ মেরুন দল আরও শক্ত হয়েছে দিমিত্রি আসায়। হুগোর মতে, “খুব ভাল লাগছে দিমিত্রিকে পাশে পেয়ে। আমাদের শক্তি বেড়েছে। এ ছাড়াও মনবীর, লিস্টন, আশিক, জনিরা আছে।”

নিজেদের দল নিয়ে তিনি জানান, গত বছরের দলের সঙ্গে এই মরসুমের দলের পার্থক্য আছে। অনেক নতুন ফুটবলার এসেছে। তবে আমাদের দলের ভারসাম্য গতবারের মতোই রয়েছে। কোচ আমাদের দলে প্রায় দশ মাস ধরে কাজ করছেন। প্রতি দিন আমরা উন্নতি করছি। এটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

হুগোর টার্গেট দলের সেরা পারফরমেন্স করে দলকে জেতানো। তার কথায়, “দলের সেরা খেলোয়াড় হয়ে ওঠাটাই ব্যক্তিগত লক্ষ্য। প্রতি ম্যাচে দলের সাফল্যে অবদান রাখতে চাই। গত বছর খেলার স্টাইলের দিক থেকে আমরা লিগের অন্যতম সেরা দল ছিলাম। তা সত্ত্বেও সে রকম সফল হতে পারিনি ঠিকই। ফুটবলে অনেক ছোটখাটো ব্যাপার থাকে, যেগুলো নিখুঁত হওয়া প্রয়োজন। আক্রমণ, রক্ষণ সব কিছুই ঠিকমতো করা দরকার। তবে ছোটখাটো ব্যাপারগুলো ঠিক হলে সেরা দল হওয়া সম্ভব।”

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *