বিতর্কের মাঝেই তৃণমূলের সাংগঠনিক নির্বাচন, ঘোষণা পার্থর

এনএফবি, কলকাতাঃ

দলের আভ্যন্তরীণ মত পার্থক্য সামনে এসেছে। প্রকাশ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় পরস্পর বিরোধী বাকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছেন দলের নেত্রী স্থানীয়রা। এই অবস্থায় আগামী ২ ফেব্রুয়ারি রাজ্যের শাসক তৃণমূলের সাংগঠনিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে। তবে চেয়ার পার্সন এবং সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক পদে কোনও ভোট হবে না মঙ্গলবার সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এই সাংগঠনিক নির্বাচনে তিনিই রিটার্নিং অফিসারের ভূমিকায় থাকবেন।

এ দিন পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, সবার আগে দলের চেয়ার পার্সন নির্বাচিত হবেন। পরে ওয়ার্কিং কমিটি ও অন্যসব পদে ভোট হবে। ভোটার তালিকা ২৫ জানুয়ারির মধ্যে প্রকাশ করা হবে। “ দলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিকল্প নেই। তিনিই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সাধারণ সম্পাদক করেছেন। ফলে নির্বাচন হবে বাকি সব পদের জন্য”- একইসঙ্গে ঘোষণা করেছেন পার্থ।

উল্লেখ্য, কমিশনের নির্দেশ মতো চলতি বছরের ৩১ মার্চের মধ্যে তৃণমূলের সাংগঠনিক নির্বাচন করতে যা হবে ২ ফেব্রুয়ারি।

২০১৭ সালে তৃণমূলের সাংগঠনিক ভোটে চেয়ার পার্সন নির্বাচিত হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবারও সেই পথেই হাঁটতে চলছে দল বলেই মনে করা হচ্ছে। তবে কোভিড আবহে ভোট নিয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যকে ঘিরে যে বিতর্কের সূত্রপাত হয়েছে সেই পরিস্থিতিতে এই সাংগঠনিক নির্বাচন যে গুরুত্বপূর্ণ হতে চলছে সে কথা অস্বীকার করা যাবে না। একই সঙ্গে প্রশ্ন উঠছে বিতর্ক এড়াতেই কী চেয়ারপার্সন এবং সর্বভারতীয় সম্পাদক পদে নির্বাচন হবে না বলে স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। তবে রাজ্যের চার পুর নিগমের নির্বাচনের আগে তৃণমূলের এই সাংগঠনিক নির্বাচন নিয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের কৌতুহল থাকবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

খবরটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করুন

নিউজফ্রন্ট বাংলার এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 95936 66485

Leave a Reply

Your email address will not be published.