গাইড লাইনই জানেন না! মোদীর সামনে ধনখড়কে তুলোধনা মুখ্যমন্ত্রীর

এনএফবি, কলকাতাঃ

প্রধানমন্ত্রীর সামনেই রাজ্যপালের অজ্ঞতা নিয়ে তুলোধনা মুখ্যমন্ত্রীর। অস্বস্তিতে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। চিত্তরঞ্জনের দ্বিতীয় ক্যাম্পাসের ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কেন্দ্রের গাইড লাইনই জানেন না বলে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে সরাসরি অভিযোগ তুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুক্রবার রাজারহাটে চিত্তরঞ্জন ন্যাশানাল ক্যান্সার ইনস্টিটিউটের দ্বিতীয় ক্যাম্পাসের ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডঃ মনসুখ মন্ডাভিয়া, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। এ দিন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের ভাষণে প্রধানমন্ত্রীর কাছে চিকিৎসকদের কোটা বাড়ানোর আর্জি জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “ একই হাসপাতালের ৭৫ জন চিকিৎসক একসঙ্গে কোভিড আক্রান্ত হলে কীভাবে চলবে বলুন? আপনার কাছে অনুরোধ চিকিৎসকের কোটা বাড়ান। অফিসারও প্রয়োজন। কেন্দ্র পরামর্শ দিয়েছে বাইরে থেকে লোক নিতে সেটা মেনে আমরা কাজ করেছি। কিন্তু তাতে গর্ভনর প্রশ্ন করছেন, এমনটা কেন হল? কোন প্রক্রিয়ায় হল? কেন্দ্রের গাইডলাইনই তো জানেন না গর্ভনর।“ এই কথা শোনার পর রাজ্যপালকে সরাসরি কিছু না বললেও প্রধানমন্ত্রী তার দিকে তাকান। আজ মুখ্যমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে জানান, করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আনতে কেন্দ্রের নির্দেশিকা ৯৯ শতাংশ মেনেছে রাজ্য সরকার। কিন্তু রাজ্যপাল সেসব গাইডলাইন জানেন না। উল্টে প্রশ্ন তোলেন।

উল্লেখ্য, বঙ্গ রাজনীতিতে নবান্ন রাজভবন দ্বৈরথ নতুন কিছু নয়। তৃতীয়বার ক্ষমতায় ফেরার পর প্রতিপদে রাজ্যের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন তোলা একটা রেওয়াজে পর্যবসিত করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। পাল্টা উত্তর দিতে পিছিয়ে নেই শাসক তৃণমূলও। সম্প্রতিতে গোয়াতে রাজ্যপালকে উদ্দেশ্য করে রাজভবনের রাজ বলে কটাক্ষ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে আজ প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে ‘কেন্দ্রের গাইড লাইন’ না জানা নিয়ে যে প্রশ্ন তুলে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী তাতে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের অস্বস্তি বাড়বে বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মহল।


খবরটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করুন

নিউজফ্রন্ট বাংলার এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 95936 66485

Leave a Reply

Your email address will not be published.