ফের ওপেনার ব্যর্থ, শতরান করে বাংলাকে তুললেন অনুষ্টুপ

স্পোর্টস ডেস্ক, এনএফবিঃ

বাংলা – (প্রথম ইনিংস – ৩১০/৯ অনুষ্টুপ – ১৫৯ ,শাহবাজ – ৪৯, আকাশদীপ – ৩৪, সিদ্ধার্থ শর্মা – ৫/৬৯)

ফের ব্যাটিং ব্যর্থতা বাংলার। রনজি ট্রফির দ্বিতীয় ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নেমেই ব্যাটিং বিপর্যয় ঘটে যায় বাংলার। হিমাচল প্রদেশের সিদ্ধার্থ শর্মার দুরন্ত বোলিং। স্কোর বোর্ডে তখন ৪৪ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে রীতিমতো কোনঠাসা বাংলা। একে একে প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছেন অভিষেক দাস (১১), কৌশিক ঘোষ (৪), সুদীপ ঘরামি (৫), মনোজ তিওয়ারি (৩)।

ইডেনের সকালের পিচ যে কোনও ব্যাটারদের ক্ষেত্রেই ভয়ঙ্কর থাকেই। তবে ইডেন হোক বা অন্য মাঠ হোক, বাংলার ওপেনারদের ব্যর্থতা ধারাবাহিক। এই রোগ এখনও থেকেই গেছে। স্বাভাবিক ভাবেই চাপ এসে পড়ে মিডল অর্ডার ব্যাটারদের উপর। এটাই বাংলা ক্রিকেট দলের দস্তুর।

দলের ৪৪/৫ থেকে হাল ধরেন বাঙালি অনুষ্টুপ মজুমদার। শাহবাজ আহমেদকে সঙ্গে নিয়ে অসাধারণ পার্টনারশিপ (১১০ রান) গড়লেন। দায়িত্ব নিয়ে নিয়ে অনুষ্টুপ করে ফেললেন নিজের ১১তম শতরান। সেই সঙ্গে খাদের কিনারা থেকেও বাংলাকে টেনে তুললেন। শাহবাজের মূল্যবান ৪৯ রান দলকে দারুণ সাহায্যব করেছে। শাহবাজ আউট হতেই আকাশদীপের (৩৪) সঙ্গে ৬৫ রানের পার্টনারশিপ খেলেন অনুষ্টুপ। অনুষ্টুপ ১৫৯ রানে অপরাজিত আছেন। ২১ টি চার ও ২টি ছক্কা দিয়ে নিজের ইনিংস সাজিয়েছেন। প্রথম দিনের শেষে বাংলা ৩১০/৯।

এটাই কি তাঁর সেরা শতরান? উত্তরে ম্যাচ শেষে অনুষ্টুপ বলছিলেন,”অতীতে কোয়ার্টার ফাইনাল,সেমিফাইনাল ম্যাচে দলের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে শতরান করেছি। এটা গ্রুপ লিগের ম্যাচ। তবে দলের খারাপ সময়ে ব্যাট করতে নেমে শতরান করাটা সব সময় ভাল লাগে। তবে আমাদের সন্তুষ্টির কোনও যায়গা নেই। প্রথম দিনের শেষে একটা ভদ্রস্থ রান করা গিয়েছে। ম্যাচটা আমাদের জিততে হবে।”

বারবার ওপেনাররা ব্যর্থ হচ্ছেন। আর চাপ সামলাতে হচ্ছে আপনাদের। প্রশ্ন শেষ হওয়ার আগেই অনুষ্টুপ বললেন, “ওপেনাররা রান পাচ্ছে না ঠিকই। তবে ওরা চেষ্টা করছে। আর আমরা যারা সিনিয়র তাদের উপর যেমন একটা প্রত্যাশা থাকে তেমনি চাপও থাকে। এই চাপ নিয়েই খেলতে হবে।”

ওপেনারদের বার বার ব্যর্থতা নিয়ে বাংলা দলের কোচ লক্ষ্মীরতন শুক্লাকেও প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “রান পাচ্ছে না ঠিকই। সকালের ইডেনে ব্যাট করাটা একটু চাপ থাকে। তবে আবার বলছি এই ওপেনাররাই রান করবে। অনুষ্টুপ এদিন খুব ভাল ব্যাট করেছে। শাহবাজ, আকাশদীপও খুব ভাল ব্যাট করেছে। এখনও তিন দিন ম্যাচ বাকি আছে। কাল আমাদের ভাল বোলিং করতে হবে।”
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এ দিন বাংলার বোলার রবিকান্ত সিংয়ের রনজি অভিষেক হল। হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পাওয়ায় প্রীতমের জায়গায় রবিকান্ত সুযোগ পেলেন।

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।