নিশীথকে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পরামর্শ রবির

এনএফবি,কোচবিহারঃ

ছাত্র রাজনীতি করে উঠে এসেছেন তৃণমূলের নতুন জেলা সভাপতি অভিজিৎ দে ভৌমিক- কোচবিহার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের নতুন সভাপতির প্রশংসায় পঞ্চমুখ বিজেপি নেতা তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিক। সৌজন্যের রাজনীতির বার্তা নিশীথ প্রামাণিকের।
শাসক-বিরোধীর রাজনৈতিক হিংসায় সাম্প্রতিক অতীতে বারবার শিরোনামে উঠে এসেছে কোচবিহার। এই আবহেই এদিন কোচবিহারে শাসকদলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে, বর্তমান জেলা তৃণমূল সভাপতির প্রশংসা করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক। তবে, প্রাক্তন সভাপতিদের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন নিশীথ। বলেছেন,’আগের সভাপতিদের ঔদ্ধত্য অনেকেই জানে। কথাবার্তা ভাল নয়।‘

কোচবিহার জেলায় এর আগে তৃণমূলের সভাপতি ছিলেন যথাক্রমে পার্থপ্রতিম রায়, গিরীন বর্মন, বিনয়কৃষ্ণ বর্মন ও রবীন্দ্রনাথ ঘোষরা। পরে কোচবিহার জেলা তৃণমূলের সভাপতি করা হয় অভিজিৎ দে ভৌমিককে। উৎসবের এই মরসুমে তাঁরই প্রশংসা করেছেন নিশীথ প্রামাণিক। যা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনীতি।

পাল্টা তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সহ সভাপতি তথা কোচবিহার পুরসভার চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ ঘোষ নিশীথের উদ্দেশে বলেন,”বিজেপি দলটা আছে কোথায়। বিজেপি দলটি চোরা বালিতে নিমজ্জিত হয়ে যাচ্ছে। বিজেপির দলটাই গলা পর্যন্ত ডুবে গেছে। শুধু মাথা টুকু বাকি। তাই তিনি কোচবিহার জেলার সভাপতির প্রতি ভরসা। যদি তার প্রতি ভরসা থাকে তাহলে তৃণমূল যোগ দিক। কারণ তার কথায় বিজেপি দলের নেতাদের কথায় তার ভরসা নেই। এটা প্রমাণ তার ওই বক্তব্যে। উনি তো আগে তৃণমূলে ছিলেন, তৃণমূলকে যদি ভরসা করা যায় তাহলে তিনি তৃণমূলে যোগদান করুক।”

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।