রোনাল্ডো, মেসিকে পিছনে ফেলে সবচেয়ে ধনী এই বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার

অঞ্জন চ্যাটার্জী, এনএফবিঃ

চমকপ্রদ ঘটনা ফুটবল বিশ্বতে। বিশ্বকাপ শুরুর এক মাস আগে। ফোর্বসের সর্বোচ্চ আয় করা ফুটবলারের তালিকায় ক্লাব সতীর্থ লিওনেল মেসি ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোকে পেছনে ফেলেছেন পিএসজির তারকা ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপ্পে। নয় বছরের মধ্যে এই প্রথম কোনো ফুটবলার আইকনিক জুটির ওপরে পিছনে ফেললেন। রোনাল্ডো বা মেসি ছাড়া তালিকার শীর্ষে থাকা সর্বশেষ খেলোয়াড় ছিলেন ২০১৩ সালে ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক ডেভিড বেকহ্যাম। ফোর্বসের তালিকা অনুযায়ী এমবাপ্পে এই মরসুমে ১২৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করবেন। এদিকে দ্বিতীয় স্থানে থাকা মেসি ১২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং তৃতীয় স্থানে থাকা রোনাল্ডো ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করবেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ফরাসি সুপারস্টার নতুন সিজনের জন্য বেতন এবং সাইনিং বোনাস হিসাবে প্রায় ১১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করবেন। পাশাপাশি অতিরিক্ত ১৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার উপার্জন করবেন বড় ব্র্যান্ড কোম্পানির মাধ্যমে। তিনি তার নিজস্ব প্রযোজনা সংস্থা জেব্রা ভ্যালিও প্রতিষ্ঠা করেছেন, ফ্যান্টাসি এনএফটি প্ল্যাটফর্ম ‘সোরারে’ একজন রাষ্ট্রদূত এবং একজন বিনিয়োগকারী হিসাবে যোগদান করেছেন।

ব্রাজিলের পিএসজি ফরোয়ার্ড নেইমার ৮৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার নিয়ে তালিকায় চতুর্থ স্থানে, লিভারপুলের মোহামেদ সালাহ ৫৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার নিয়ে পঞ্চম স্থানে, এছাড়াও ষষ্ঠ, সপ্তম, অষ্টম, নবম ও দশম স্থানে রয়েছেন যথাক্রমে ম্যানচেস্টার সিটির নতুন তারকা আর্লিং হ্যাল্যান্ড ৩৯ মিলিয়ন ডলার, বার্সেলোনার ফরোয়ার্ড রবার্ট লেওয়ানডোস্কি ৩৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, রিয়াল মাদ্রিদের এডেন হ্যাজার্ড মার্কিন ডলার ৩১ মিলিয়ন, ভিসেল কোবের আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা ৩০ মিলিয়ন ডলার এবং ম্যানচেস্টার সিটির কেভিন ডি ব্রুইনে ২৯ মিলিয়ন ডলার। প্রসঙ্গত ২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয় ফ্রান্স। আর ফ্রান্স দলের বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম নায়ক ছিলেন এমবাপ্পে। এবার ২০২২ সালে ফ্রান্সের গ্রপে রয়েছেফ্রান্স, ডেনমার্ক, টিউনিশিয়া, অস্ট্রেলিয়া। গ্রুপ ডিতে রয়েছে ফ্রান্স। এখনও অবধি ২ বার বিশ্বকাপ জয় করেছে ফরাসিরা ১৯৯৮ আর ২০১৮ সালে। এ বারের বিশ্বকাপ শুরু ২১ নভেম্বর। ফাইনাল হবে ১৮ ডিসেম্বর। কাতারের রাজধানী দোহাতে আটটি স্টেডিয়ামে হবে খেলামেসি আর রোনাল্ডোর সম্ভবত এবারই শেষ বিশ্বকাপ এমবাপেকে নতুন তারকা মনে করছে অনেকে। কাতার বিশ্বকাপে ফিফা এমন প্রযুক্তি আনতে চলেছে, যেখানে অফসাইড ফাঁকি দিয়ে গোল করা কার্যত অসম্ভব। সামান্যতম ফাঁক থাকলেও তা ধরা পড়ে যাবে যন্ত্রে। ফলে আগাম আনন্দ করার কোনও উপায়ই থাকছে না।

কাতার বিশ্বকাপে সেমি অটোমেটেড অফসাইড টেকনোলজি (এসএওটি) আনতে চলেছে ফিফা।

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।