অনির্বানের উপস্থিতিতে স্মৃতি মেদুর মুখ্যমন্ত্রী

স্পোর্টস ডেস্ক, এনএফবিঃ

বাংলা ফুটবলের জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ভালোবাসা সকলেই জানে। আর সেটা ফের একবার প্রমাণিত হলো। এক মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় আর আইএফএ সচিব অনির্বান দত্ত।

এদিন হরিদেবপুরের ৬২ বছরের অজেয় সংঘতি ক্লাবের দুর্গা পূজার উদ্বোধনে এসেছিলেন মুখ‍্যমন্ত্রী মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়। সেই অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইএফএ সচিব আনির্বান দত্ত। হরিদেবপুরের অজেয় সংঘতি ক্লাবে এসে মুখ‍্যমন্ত্রী জানতে পারেন তাঁর প্রিয় প্রয়াত দাদা প্রদ‍্যোৎ দত্তর ছেলেও এসেছেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রদ‍্যোৎ দত্তর সুপুত্র অনির্বান। যখন মমতা মুখ্যমন্ত্রী হননি রাজ্যের বিরোধী নেত্রী এবং কেন্দ্রের ক্রীড়া ও যুবকল্যাণ দফতরের মন্ত্রী ছিলেন তবে থেকে প্রদ‍্যোৎ দত্তর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠতা। আর এবার প্রদ‍্যোৎ দত্তর ছেলে আইএফএ সচিব।

মুখ‍্যমন্ত্রী এসেছিলেন পুজো উদ্বোধন করতে। দু’জনের কথাও হলো। মমতার থেকে আশীর্বাদও নিলেন অনির্বান। অনির্বানকে দেখে তাঁর প্রিয় প্রদ‍্যোৎদার স্মৃতির কথা শোনালেন মমতা।

হরিদেবপুরের অজেয় সংঘতি ক্লাবের মঞ্চে উঠে মমতা বলছিলেন,” প্রদ‍্যোৎদা আমার দাদার মতো। আমাকে খুব স্নেহ করতেন। তাঁর বাড়িতে আমার নিয়মিত যাতায়াত ছিল। রবীন্দ্র সরোবর বাঁচানোর জন‍্য যে সবুজ বাঁচাও আন্দোলন করেছিলাম তা প্রদ‍্যোৎদা আমার পাশে না থাকলে সম্ভব হত না। প্রদ‍্যোৎদার সঙ্গে কত স্মৃতি জড়িয়ে আছে। তাঁর স্নেহ কখনও ভুলতে পারবো না।”

এদিন মমতা আরও বলেন বলছিলেন,”প্রদ‍্যোৎদা অসুস্থ। দিল্লির আমার ফ্ল‍্যাটে বৌদিরা উঠেছিলেন। আমার আজ মনে পরে যাচ্ছে আমার ঠাকুরের কাছে সিঁথির সিঁদুরের কৌটো ফেলে রেখে গিয়েছিলেন বৌদি।”

অনির্বানও কিছুটা আবেগপ্রবণ হলেন এদিন তিনি জানালেন, “আমি সেই ছোট বেলা থেকে উনাকে দেখে আসছি। তখনও উনি মুখ্যমন্ত্রী হননি। তবে খুবই স্নেহ করতেন। পুরনো দিনের কথা হচ্ছিল।” এরপর মঞ্চে বক্তব‍্য রাখতে গিয়ে অনির্বান বলেন,” বাংলার শ্রেষ্ঠ পুজো হল দুর্গোৎসব। তেমনি বাংলার শ্রেষ্ঠ খেলা ফুটবল। পুজোর ব‍্যস্ততার মধ‍্যেও যেভাবে কলকাতা ফুটবল লিগ করতে পারছি তার জন‍্য মুখ‍্যমন্ত্রীকে আমার কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।”

এই কুশল বিনিময়ের মধ্যে অনেক অংক লুকিয়ে আছে। আইএফএতে তাকালে দেখা যাচ্ছে কার্যত বাংলা ফুটবলের নিয়মক সংস্থা দুইভাগে ভাগ। কিছুদিন আগে আইএফএ স্পনসর ঘোষণার বিষয় জানেন না বলে সহ সভাপতি সৌরভ পাল প্রকাশ্যে জানান। সহ সভাপতি সৌরভ পাল সহ সচিব নজরুল ইসলাম এছাড়া বাকি কিছু কর্তা একদিকে, অপরদিকে আইএফএ চেয়ারম্যান সুব্রত দত্ত সভাপতি অজিত বন্দোপাধ্যায় (যিনি মুখ্যমন্ত্রীর দাদা )। অজিত বন্দোপাধ্যায় সবসময় অনির্বানের সততাকে সম্মান করেন। তবুও কিছুটা চাপ ছিল। মনে করা হচ্ছিলো মোহনবাগানকে কলকাতা লিগে না নামাতে পারা নিয়ে কিছুটা ব্যাকফুটে ছিলেন আইএফএ সচিব অনির্বান। কিন্তু এদিন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে অনির্বানের কুশল বিনিময় অনির্বানকে কিছুটা অক্সিজেন দিলো মনে করছে কলকাতা ময়দান।

উল্লেখ্য, মাত্র তিন মাস বাংলা ফুটবলের সচিবের চেয়ারে বসেছেন অনির্বান। আগের সচিব জয়দীপ মুখোপাধ্যায় মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই পদত্যাগ করেন তার জায়গায় নতুন সচিব নির্বাচিত হন অনির্বান দত্ত।

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।