নিজের কন্যাকে মাটি চাপা দিয়ে মাতৃ আরাধনা করেন পুরোহিত

এনএফবি, বালুরঘাটঃ

শিয়রে দীপান্বিতা অমাবস্যা। এই তিথিতেই বিভিন্ন জায়গায় মানুষ কালী আরাধনায় মেতে উঠবেন।

প্রাচীনকাল থেকেই বাংলার বেশীরভাগ বড় বড় জমিদার থেকে শুরু করে ডাকাতরা দেবীর কৃপা ও আশীর্বাদ পাবার জন্য সবাই ঘটা করে আয়োজন করতেন কালী পুজোর। সেই কালী পুজো প্রচলিত দক্ষিন দিনাজপুর জেলায়ও।

জেলার তপনের ভিকাহারে জাগ্রত মন্দিরবাসিনী মা কালী মন্দির। প্রায় পাঁচ শো বছরের প্রাচীন ও জাগ্রত এই মন্দিরবাসিনী মা কালীর বিষয়ে কথিত আছে একদা এক পুরোহিত তার নিজের কন্যাকে মাটি চাপা দিয়ে তার উপরেই রাতারাতি মায়ের মূর্তি নির্মাণ করে সেই প্রতিমাকে পুজো করার পর ভোরের আলো ফোটার আগেই বিসর্জন দেন।

সেই থেকে ঐতিহ্য মেনেই বর্তমানেও এই কালি পুজো প্রচলিত। এই পুজোকে কেন্দ্র করে প্রচুর ছাগ বলি দেওয়া হয়। মাছ মাংস দিয়ে ভোগ দেওয়া হয় মাকে।

তবে এই পুজোয় মহিলাদের প্রবেশে বাধা নিষেধ থাকায় এলাকার কোন মহিলাই পুজোর সময় মন্দিরের ভেতর উপস্থিত থাকেন না।

যদিও ভক্তজনের দাবি মা এতই জাগ্রত যে কোন ভক্ত মানত করলে তার কামনা অতিসত্বর পূরণ করেন।

সত্যরঞ্জন চৌধুরী, স্থানীয় বাসিন্দা

তার জন্যই তো এই পুজোকে ঘিরে জেলার মানুষ তো বটেই উত্তরবঙ্গের অনেক জেলার থেকেই ভক্ত নন এমন ব্যক্তিরাও পুজোর দিন পুজো দিয়ে তাদের মনের বাসনা জানাতে ভোলে না। এই পুজোকে ঘিরে এলাকায় উদ্দীপনা দেখা যায়।

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।