বিচারব্যবস্থাকে পাশকাটিয়ে গ্রাম্য সালিশিতে স্ত্রীকে ডির্ভোস, মারধোর টাকা নেওয়ার অভিযোগ নির্যাতিতার

এনএফবি, পূর্ব মেদিনীপুরঃ

মধ্যযুগীয় বর্বরতা। গ্রাম কমিটির মাতব্বরদের ফতোয়া, দিতে হবে কয়েক লক্ষ টাকা জরিমানা সঙ্গে ছাড়তে হবে গ্রাম। সালিশি সভার নামে জোটে মারধর, রাতের অন্ধকারে বেআইনি ভাবে হয় ডিভোর্স! ন্যায়ের আশায় পুলিশের দ্বারস্থ নন্দকুমারের শ্যামলী শাসমল।

জানা গেছে, দশ বছর পূর্বে নন্দকুমারের চুনাখালি গ্রামের ক্ষুদিরাম শাসমলের সাথে বিয়ে হয় শ্যামলী শাসমলের। তিনটি কন্যা সন্তান রয়েছে তাদের। বিয়ের পরই ক্ষুদিরাম তার স্ত্রীকে পাঠায় ওড়িশায় কাজের জন্য।

প্রজাপতি জানা বর্মন, সভাপতি গ্রাম কমিটি

এরপর স্ত্রীর বিরুদ্ধে পরকীয়ার অভিযোগ তুলে শ্যামলীকে ব্যাপক মারধর করে ক্ষুদিরাম। স্বামীর অত্যাচার থেকে বাপের বাড়িতে আশ্রয় নেন শ্যামলী।এরপর গ্রামে ফিরলে মাতব্বররা ফতোয়া জারি করে শ্যামলীর উপর। ফতোয়া অনুযায়ী, শ্যামলীর মালিকানাধীন জায়গা জমি তার স্বামীর নামে করে দিতে হবে। স্বামীকে ৫ লক্ষ টাকা দিতে হবে এবং বিচ্ছেদ নিতে হবে। একইসঙ্গে গ্রাম কমিটিকে দিতে হবে এক লক্ষ টাকা। এখানেই ক্ষান্ত নয়। সালিশি সভায় ব্যাপক মারধোরও করা হয় শ্যামলীকে। এই কথা গ্রাম কমিটির সদস্য এবং শ্যামলীর স্বামী কার্যত স্বীকারও করে নিয়েছেন।

শম্ভু সিনহা, গ্রাম কমিটির সদস্য

ক্ষুদিরাম শাসমলের দাবী, তার স্ত্রীর বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল। যার কারণে গ্রামের সালিশি সভায় তিনি বিচার চান। সালিশি সভায় তাকে নতুনভাবে সংসার করতেও নিদান দেয়। জোর পূর্বক জায়গা জমি রেজিস্ট্রি করে নেওয়া হয়। ক্ষুদিরাম আবার বিয়ে করেন কয়েকদিন দিন পূর্বে। অসহায় শ্যামলী সংবাদ মাধ্যমের দ্বারস্থ।

যেখানে নন্দকুমার থানা এলাকায় কোন কোর্ট নেই, সেখানে ১০ টাকার স্ট্যাম্প পেপারে ডিভোর্স সম্পন্ন হলো কিভাবে? শ্যামলীর দাবি জোরপূর্বক বেআইনিভাবে ডিভোর্স হলেও শ্যামলীর স্বামী ক্ষুদিরাম শাসমল তা জোরপূর্বক হয়েছে মানতে নারাজ। গ্রাম কমিটির সভাপতি প্রজাপতি বর্মন টাকা নেওয়ার বিষয়টি স্বীকারও করেছেন।

ক্ষুদিরাম শাসমল, নির্যাতিতার স্বামী
ক্ষুদিরাম শাসমল, নির্যাতিতার স্বামী

বিচারব্যবস্থাকে পাশ কাটিয়ে একবিংশ শতাব্দীতে গ্রামের মোড়লদের মাতব্বরি এখনও বিদ্যমান তা নন্দকুমারের ঘটনায় স্পষ্ট। ন্যায় বিচারের আশায় শ্যামলী বর্মন অভিযোগ করেছেন নন্দকুমার থানায়। ৪৯৭, ৪৯৮ এ, ৪৯৪/৩৮৪, ৪৪ আইপিসি এই ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে দশ জনের নামে। শ্যামলী ন্যায়বিচার পাবে কিনা, তা এখন সময়ের অপেক্ষা।

পড়ুয়াদের পাতে পচা সবজি, স্কুলের গেটে তালা ঝোলানোর হুঁশিয়ারি অভিভাবকদের – NF Bangla Private Limited (newsfrontbangla.com)

নিউজ ফ্রন্ট বাংলার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।