ভ্রমণ

করোনা কাটিয়ে কাটরা মসজিদে পর্যটকদের আনাগোনা, স্বস্তি গাইডদের

মনোদীপ ব্যানার্জী, এনএফবিঃ

রাজ্যের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র মুর্শিদাবাদ। হেমন্তের হালকা শীতে বহু পর্যটকই ভিড় জমান নবাবের জেলায়। তবে করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল জেলার পর্যটন কেন্দ্র গুলি, তাই মুখ থুবড়ে পড়েছিল জেলার পর্যটন শিল্প। কর্মহীন হয়ে পড়েছিল বহু মানুষ। তবে উৎসবের মরশুমে ভিড় বাড়ছে নবাব নগরীতে। পর্যটক সমাগমে কিছুটা হলেও স্বস্তি মিলছে জেলার পর্যটন কেন্দ্রগুলির গাইডদের।

মুর্শিদাবাদ স্টেশনের অনতিদূরে রয়েছে ‘কাটরা মসজিদ’। দীর্ঘদিন পর্যটক শূন্য থাকার পর ধীরে ধীরে ভিড় বাড়ছে এই পর্যটন কেন্দ্রেও। আর তাতেই আঁধার কাটিয়ে আলোর ঝিলিক দেখছে স্থানীয় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী থেকে গাইডরাও।

ডিসেম্বর ও জানুয়ারি মাস ছাড়া আর তেমনভাবে উপার্জন হয়না কাটরা মসজিদের বাইরে দাঁড়ানো জনা বিশেক গাইডদের। বাকি দশ মাস নানান পেশায় নিজেদের নিয়োজিত রাখে তারা। করোনা পরিস্থিতিতে নিজেদের পেশাও বদলেছে অনেকই। কারুর কোনোদিন ৪০০ তো কারুর বা ২০০ এই ভাবেই দৈনিক উপার্জন এদের। এক গাইডের কথায়, “মাসে ৮ দিন কাজ হয়। এর বাইরে অন্যকাজও নিজেদের করতে হয়। না হলে সংসার কী করে চলবে বলুন!”

বীরভূম, মেদিনীপুর থেকেও আসছেন বহু পর্যটক। আসছে অন্য রাজ্য থেকেও। শনিবার – রবিবার পর্যটকদের দল ভিড় জমাচ্ছেন কাটরা মসজিদে। তবে কোনোরকম সরকারি সাহায্য তারা পাননা বলেই দাবি করেছেন গাইডরা।