পেরোসেভিচের জায়গায় নামার মতো ফুটবলার দলে আছেঃ দিয়াজ

অঞ্জন চ্যাটার্জী, এনএফবিঃ

টানা সাত ম্যাচে জয়হীন থাকার পরে অষ্টম ম্যাচে তারা শক্তিশালী হায়দ্রাবাদ এফসি-র মুখোমুখি, যারা মুম্বই সিটি এফসি-র সঙ্গে প্রথম স্থান দখলের লড়াই করছে। এমন এক ম্যাচের আগে এসসি ইস্টবেঙ্গলের স্প্যানিশ কোচ হোসে মানুয়েল দিয়াজ-কে আশাবাদী মনে হলেও ক্লাবের পরিবেশ ও দলের ফুটবলারদের মাঠে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতায় একেবারে খুশি নন তিনি। বুধবার এই কঠিন ম্যাচ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে কী বললেন তিনি? জেনে নেওয়া যাক।

বছরের শেষ ম্যাচ শক্তিশালী হায়দ্রাবাদ এফসি-র বিরুদ্ধে। মাঠে আপনার দলের মানসিকতা কী রকম থাকবে?

উত্তরঃ আগের ম্যাচ গুলোর মতোই জেতার মানসিকতা নিয়েই নামবে আমাদের ছেলেরা। যদিও কোনও ম্যাচেই আমরা জিততে পারিনি এখনও। তবে প্রতি ম্যাচেই আমরা জয়ের লক্ষ্য নিয়েই খেলতে নামি।

আন্তোনিও পেরোসেভিচ এই ম্যাচে খেলতে পারবেন না। ওর অভাব অনুভব করবেন নিশ্চয়ই?

উত্তরঃ আন্তোনিও আমাদের নিয়মিত খেলোয়াড়। ও না খেলতে পারলে ওর জায়গায় খেলার মতো ফুটবলার আমাদের দলে আছে। চিমা আছে, সেম্বয় আছে, বলওয়ন্তও রয়েছে।

আন্তোনিও লোপেজ হাবাস এটিকে মোহনবাগানের দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ার পরে কি আপনি বাড়তি চাপ অনুভব করছেন?

উত্তরঃ চাপ আমার নিজের জ্ন্যই। ক্লাবের পরিবেশ খুব একটা ভাল নয়। তাই দল ম্যাচ জিততে পারছে না। এটিকে মোহনবাগান ও এসসি ইস্টবেঙ্গলের লক্ষ্য সম্পূর্ণ আলাদা। এটিকে মোহনবাগান গতবারের ফাইনালিস্ট। কিন্তু এসসি ইস্টবেঙ্গল খেলোয়াড়দের সই করাতে অনেক দেরি করেছে।

অযথা গোল খাওয়া বন্ধ করার কী উপায়? ফর্মে থাকা হায়দ্রাবাদ এফসি-কে আটকাবেন কী করে?

উত্তরঃ যে সাতটা ম্যাচ আমরা খেলেছি, তাতে দলের প্রায় সব খেলোয়াড়ই মাঠে নামার সুযোগ পেয়েছে। এমনকী, তিন গোলকিপারও। অনুশীলনে আমরা কঠোর পরিশ্রম করা সত্ত্বেও প্রচুর ভুল করেছি। ম্যাচে (আমাদের খেলোয়াড়দের) সিদ্ধান্তগুলো খুবই খারাপ হয়েছে। যা অনুশীলন হয়েছে এবং ম্যাচে যা পারফরম্যান্স দেখা গিয়েছে, তার মধ্যে অনেক তফাৎ দেখা গিয়েছে।

দলের কি একজন ডিফেন্সিভ ব্লকারের খুব প্রয়োজন?

উত্তরঃ অনেক কিছুই দরকার আমাদের। কিন্তু যে দল আমাদের হাতে আছে, সেই দল নিয়েই খেলতে হচ্ছে।

পেরোসেভিচ যেহেতু এই ম্যাচে খেলতে পারছে না, তাই বলওয়ন্ত সিংকে কি প্রথম এগারোয় দেখা যেতে পারে?

উত্তরঃ না। কারণ, বলওয়েন্তকে পুরো তৈরি হওয়ার জন্য এখনও সময় দিতে হবে। ও অনেক দিন ধরে আহত হয়েছিল। ও খুব বেশি হলে ২০-৩০ মিনিট খেলতে পারবে।

ফ্রানিও পর্চে ও ড্যারেন সিডোলকে কত দিনের জন্য মাঠের বাইরে থাকতে হবে?

উত্তরঃ ফ্রানিওর গোড়ালিতে চোট রয়েছে। দলের ডাক্তাররা এই ব্যাপারে বলতে পারবেন। দেখা যাক, জানুয়ারিতে কী হয়! আর ড্যারেন আজ দলের সঙ্গে অনুশীলন করেছে। আশা করি আগামী বছরের প্রথম ম্যাচে ও হয়তো সুস্থ হয়ে মাঠে নামতে পারবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.