ক্রীড়া

[:en]গুরপ্রীতের হাতে সাফ ফাইনালে ভারত[:]

[:en]

এনএফবি, স্পোর্টস ডেস্কঃ

টানটান উত্তেজনায় ঠাসা ১২০ মিনিটের ফুটবল-যুদ্ধ পেরিয়ে পেনাল্টি শুট আউটে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনাল জিতে নিল গতবারের চ্যাম্পিয়ন ভারত। শনিবার বেঙ্গালুরুর কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে ভারতের গোলকিপার ও বহু যুদ্ধের সেরা সৈনিক গুরপ্রীত সিংসান্ধু যেমনফের একবার নায়ক হয়ে ওঠেন, তেমনই লেবাননের ফুটবলার খলিল বদের পেনাল্টি শুট আউটের শেষ শটটি ক্রসবারের ওপর দিয়ে উড়িয়ে দিয়ে খলনায়ক বনে যান।

ভারতের এই কঠিন লড়াইয়ের পরে অর্জিত জয়ের পরে সারা স্টেডিয়াম ‘বন্দেমাতরম’-এর সুরে গমগম করে ওঠে। মঙ্গলবার সাফ ফাইনালে ভারতের সামনে কুয়েত। সে দিনও ম্যাচের পর স্টেডিয়ামের চেহারা এ রকমই থাকবে কি না, সেটাই এখন সবচেয়ে বড় প্রশ্ন।নির্ধারিত সময়ের শেষ পাঁচ মিনিটের মধ্যে পরপর তিনটি কর্নার পায় ভারত। তিনটিই ক্লিয়ার করে দেন লেবাননের ডিফেন্ডাররা।পাঁচ মিনিটের বাড়তি সময়ে আশিক কুরুনিয়ানকে তুলে উদান্ত সিংকে নামানো হলেও কাজের কাজ কিছু হয়নি। ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

অতিরিক্ত সময়ের শুরুতেই, ৯৩ মিনিটে, সুনীল ছেত্রী মাপা দূরপাল্লার শট নেন গোলের উদ্দেশ্যে, যা অসাধারণ দক্ষতায় রুখে দেনগোলকিপার খলিল। কিন্তু জোরালো শট নিতে গিয়ে পায়ে কিছুটা চোট পান সুনীল। এর দু’মিনিট পরেই ডানদিক দিয়ে ওঠা উদান্ত সিংয়ের দুর্দান্ত ক্রসে ছ’গজের বক্সের সামনে থেকে বারের ওপর দিয়ে বল উড়িয়ে দেন ভারত অধিনায়ক। ৯৯ মিনিটের মাথায় বক্সের মধ্যে পরপর দু’টি সুযোগ হাতছাড়া করেন সুনীল ও ছাঙতে।

এই সময় সুনীল একেবারে ওপরে উঠে খেলায় ভারত আরও মরিয়া হয়ে ওঠে। ভারত বারবার প্রতিপক্ষের গোলের সামনে গিয়েও ব্যর্থ হয়। মহেশ, উদান্তরা ডানদিক দিয়ে বারবার আক্রমণ তৈরির চেষ্টা শুরু করেন। বাঁ দিক দিয়ে উঠছিলেন ছাঙতে। ভারতের হাইলাইন অ্যাটাক সামলাতে রীতিমতো হিমশিম খেয়ে যান লেবাননের ডিফেন্ডাররা। এই অর্ধের বাড়তি সময়ের শেষ মিনিটে নাদের মাতার যে দূরপাল্লার শট নেন, তা বারের সামান্য ওপর দিয়ে উড়ে যায়।

প্রথমার্ধে ভারত দাপট দেখালেও দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা শুরু করে লেবানন। প্রথম পাঁচ মিনিটের মধ্যে মাতুক ও খালিল বাদের পরপর তিনবার আক্রমণ হানে ভারতের গোল এরিয়ায়, কিন্তু ব্যর্থ হন। ১১২ মিনিটের মাথায় একাই দুই ডিফেন্ডার জেন ও মেল্কিকে বল দখলের লড়াইয়ে হারিয়ে বক্সের মধ্যে অনেকটা ডুকে পড়েন। কিন্তু গোলকিপার এগিয়ে এসে বাধা দেওয়ার পরে আর বল ধরে রাখতে পারেননি। শেষ মিনিটে সুনীলের পাস নিয়ে বাঁ দিক দিয়ে প্রতিপক্ষের বক্সে ঢুকে পড়েন ছাঙতে। কিন্তু গোলকিপারের গায়ে বল মারেন।

অতিরিক্ত সময়ের শেষ দিকেই পেনাল্টি শুট আউটের প্রস্তুতি শুরু করে দেয় লেবানন। ১২০মিনিটের মাথায় তারা তাদের গোলকিপার খলিলকে তুলে পরিবর্ত ও তরতাজা গোলকিপার আলি সাবেহ-কে নামায়। ভারত অবশ্য গুরপ্রীতের ওপরই ভরসা রাখে। কারণ, তিনিই দলের সবচেয়ে অভিজ্ঞ গোলপ্রহরী এবং আরও একবারসেই আস্থার যথাযোগ্য জবাবও দেন তিনি।

[:]