অসম্পূর্ণ সেতু, ক্ষুব্ধ মাথাভাঙ্গাবাসী

এনএফবি, কোচবিহারঃ

মাথাভাঙ্গা শহরে সুটুঙ্গা নদীর উপর অনেক দিন আগে থেকেই আব্বাসউদ্দীন সেতু সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে ৷ কিন্তু নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও এখনও শেষ হয়নি কাজ।

জানা গেছে, ২০২১ সালের শেষের দিকে কাজ শুরু হয়েছিল অর্থাৎ প্রায় দু মাস পেরিয়ে গেলেও এখনও সেতুর কাজ চলছে। আর এই সংস্কারের কাজের জন্য সেতুটির উপর দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল এতদিন ধরে নিয়ন্ত্রণে রাখা হয়েছে। যার ফলে বাস থেকে শুরু করে অন্যান্য বড় গাড়িগুলো শীতলকুচি রোড দিয়ে যাতায়াত করছে। যার ফলে এই রাস্তার উপর যানজট উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। সবথেকে বেশি যানজট লক্ষ্য করা যাচ্ছে শহরের চৌপথি থেকে পচাগর তেপথি পর্যন্ত সংকীর্ণ রাস্তাটিতে। যানজটের জেরে সমস্যায় পড়ছেন গাড়ি চালক সহ সাধারণ মানুষরা।

গাড়ির চালক সুভাষ বর্মন, রতন সরকার প্রমুখরা বলেন, শীতলকুচি রোডের যানজট বেড়ে যাওয়ায় গাড়ি চালাতে সমস্যা হচ্ছে।

যদিও পূর্ত ও সড়ক দফতরের মাথাভাঙ্গার অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার শংকর রায় বলেন, বর্তমানে সেতুটির এক্সপানশন জয়েন্ট এর কাজ চলছে।এরপর বিটুমিন ওয়ার্ক শেষ হলেই সেতুটির উপর দিয়ে যানবাহন চলাচলের নিয়ন্ত্রণ তুলে দেওয়া হবে।

তবে পূর্ত ও সড়ক দফতরের এই ঘোষণার পরও এতদিন যাবৎ যানচলাচল নিয়ন্ত্রণে থাকায় অসন্তুষ্ট বেসরকারি বাস মালিকরা। তাদের অভিযোগ, সেতুটির উপর দিয়ে সরকারি বাস চলাচলের অনুমতি দেওয়া হলেও কোনো বেসরকারি বাস চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়নি প্রশাসনের তরফ থেকে। এতে বেসরকারি বাস মালিকদের প্রতি বিমাতৃসুলভ আচারণ করা হচ্ছে। এনিয়ে বেসরকারি বাস মালিকরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

মাথাভাঙ্গা বাস-মিনিবাস ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সম্পাদক টোটন ভৌমিক বলেন, সেতুটি সংস্কারের জন্য ২৩ দিনের লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হলেও এখনও কাজ শেষ হলো না। প্রায় দুই মাস অতিক্রান্ত হয়ে যাচ্ছে। তাই আমাদের দাবি দ্রুত সেতু সংস্কারের কাজ শেষ করে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনা হোক।

তবে এ বিষয়ে উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থা মাথাভাঙ্গার ডিপো ইনচার্জ উত্তম মজুমদার অবশ্য এই অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন। তিনি বলেন শহরের ভেতরে আমাদের নিগমের বাস টার্মিনাস। সে ক্ষেত্রে আমাদের সেতুর উপর দিয়ে বাস নিয়ে যেতেই হবে। তবে সেতুর উপর দিয়ে গাড়ি চালাতে আমাদের চালকদেরও প্রচুর সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। তাই আমরাও চাই দ্রুত সেতুর কাজ শেষ করা হোক।

শুধু বাস মালিক বা গাড়িচালকদের এই সমস্যা নয়। এই সমস্যা মোটরসাইকেল চালক থেকে শুরু করে সাধারণ যাত্রী, হাঁটাচলা করা সাধারণ মানুষ এবং স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের। তাদেরও দাবি অনেকদিন হয়ে গেল আর কতদিন অপেক্ষা করবো প্রশাসনের কাছে অনুরোধ দ্রুত আব্বাসউদ্দীন সেতু সংস্কারের কাজ যেন শেষ করা হয়।

এ বিষয়ে মাথাভাঙ্গা মহকুমাশাসক অচিন্ত্য কুমার হাজরা বলেন, মাথাভাঙা শহরে সুটুঙ্গা নদীর উপর আব্বাসউদ্দীন সেতু সংস্কারের কাজ প্রায় শেষ মুহূর্তে। দ্রুত কাজ শেষ হয়ে যাবে বলে আশাবাদী আমরা।


খবরটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করুন

নিউজফ্রন্ট বাংলার এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 95936 66485

Leave a Reply

Your email address will not be published.