নাগাল্যান্ডে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত ১৩ নিরীহ নাগরিক!

এনএফবি, নিউজ ডেস্কঃ

নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ১৩ জন সাধারন নাগরিকের মৃত্যু ঘিরে ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠল নাগাল্যান্ড। মৃতদের মধ্যে একজন জওয়ান রয়েছে বলে জানা গেছে। আহত বহু। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই সুত্রে জানা গেছে, শনিবার রাতে নাগাল্যান্ডের মন জেলায় বিদ্রোহী বিরোধী অভিযানে যায় নিরাপত্তা বাহিনী। ওটিং ও তিরু গ্রামের মধ্যবর্তী একটি এলাকা দিয়ে সেই সময় পিক-আপ ভ্যানে চড়ে ফিরছিলেন কয়েকজন দিনমজুর। তাঁদেরই নিষিদ্ধ সংগঠন এনএসসিএন(কে)-এর জঙ্গি ভেবে আচমকা গুলি চালাতে শুরু করে সেনা। এলোপাথাড়ি গুলিতে কমপক্ষে ১১ জনের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়।
স্থানীয় এক পুলিশ আধিকারিক পিটিআইকে জানিয়েছে মৃতের সঠিক সংখ্যা নিয়ে এখনও নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না। আহত আরও বেশ কয়েকজনকে নিকটবর্তী অসমের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।এই ঘটনা নিয়ে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত শুরু হয়েছে বলে সেই পুলিশ আধিকারিক সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছে। পুলিশ আধিকারিক জানান, ওটিং ও তিরু গ্রামের কাছে নিষিদ্ধ সংগঠন এনএসসিএন(কে)-এর ইয়ং অং গোষ্ঠির জঙ্গিদের গতিবিধির খবর পায় সেনা। সেই খবরের ভিত্তিতেই নিরাপত্তাকর্মীরা গাড়ি ঘিরে গুলি চালায়।

এদিকে সেনার গুলিতে নিরীহ নাগরিকের মৃত্যুতে চূড়ান্ত ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নাগাল্যান্ডের মুখ্যমন্ত্রী নেইফু রিও। এদিন টুইট করে রিও বলেন,” ওটিংয়ে নিরীহ নাগরিকদের হত্যার ঘটনা দুর্ভাগ্যজনক ও অত্যন্ত নিন্দনীয়। শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা এবং আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। উচ্চপার্যায়ের তদন্ত হবে। সিট(SIT) তদন্ত করবে। দেশের আইন অনুযায়ী ন্যায় বিচার করা হবে। সবাইকে শান্তির পরিবেশ বজায় রাখতে আবেদন করছি। “

এই ঘটনায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ টুইট করে বলেছেন, “ নাগাল্যান্ডের মনের ওটিংয়ে একটি দুর্ভাগ্যজনক ঘটনার জন্য মর্মাহত। যারা প্রাণ হারিয়েছেন তাঁদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। রাজ্য সরকারের সিট(SIT) এই ঘটনার উচ্চপর্যায়ের তদন্ত করবে। শোকাহত পরিবারগুলিকে ন্যায়বিচার দিতে ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত হবে।“

Leave a Reply

Your email address will not be published.