এই পারফরমেন্সই ধরে রাখতে চান বাকিংহাম

অঞ্জন চ্যাটার্জী, এনএফবিঃ

ডার্বি জয়ের চার দিন পরেই এমন একটা ধাক্কা খেয়ে স্বাভাবিক ভাবেই হতাশ এটিকে মোহনবাগান শিবির। ম্যাচের পরে সাংবাদিক বৈঠকে আসতে রাজি হলেন না তাদের স্প্যানিশ কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। মুম্বই সিটি এফসি-র কোচ ডেস বাকিংহাম স্বাভাবিক ভাবেই এভাবে জয়ে ফিরতে পেরে খুবই খুশি। তবে তিনি চান না, এমন একটা বড় জয়ের পরে দলের ছেলেরা আবেগে ভেসে যাক। ম্যাচের পরে সাংবাদিক বৈঠকে দলের পারফরম্যান্স প্রসঙ্গে তিনি জানান,” আমরা যে ক্রমশ উন্নতি করছি, এ তারই প্রতিফলন। প্রথম ম্যাচে আমরা জেতার পরে দ্বিতীয় ম্যাচে হারি। খুবই ভাল খেলেছি আমরা। যে ফলটা আমাদের প্রাপ্য ছিল, সেটাই পেয়েছি। আজকের ম্যাচে আমাদের উন্নত পারফরম্যান্স দেওয়াটাই ছিল বড় চ্যালেঞ্জ এবং সেটা আমরা পেরেছি। প্রতি ম্যাচেই আমাদের আরও উন্নতি করতে হবে। আজ যে সুযোগগুলো পেয়েছি, সেগুলো ছেলেরা কাজে লাগাতে পেরেছে, যা আগের দিন পারেনি।” বিক্রম সিং প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “শুধু বিক্রম নয়। ভারতের সেরা তরুণ ফুটবলাররা আমাদের ক্লাবে রয়েছে। কারণ, আমরা ওদের বেছে নিয়ে ওদের উন্নতি করতে সাহায্য করি। তবে আমাদের সিস্টেমগুলো ওদের বুঝতে হবে। কোন পরিস্থিতিতে কোন সিস্টেমে খেললে সেটা কার্যকরী হবে, তা ওদের বোঝানো হয়। বিক্রমকেও সে ভাবেই বোঝানো হয়েছে। ওর এই সুযোগটা প্রাপ্য ছিল। গুরকিরাতেরও আজই প্রথম ম্যাচ ছিল। এটা অফ সিজনে পরিশ্রম করার ফল।”

প্রশ্ন করা হয় আগের রাতে ৫-৪-এর প্রভাবেই কী এই ফল। মুম্বাই কোচ জানান,
“না, সে রকম কিছু নয়। আমরা ঠিকই করেছিলাম, আজকের ম্যাচে ভাল খেলব। নিজেদের পারফরম্যান্সে মনোনিবেশ করেছিলাম। উইথ দ্য বল এবং উইদাউট দ্য বল কী ভাবে আরও ভাল খেলব, এটাই আমাদের কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বিরতিতে ছেলেদের বলি, স্কোরলাইন যাই হোক না কেন, তোমরা এই খেলাটা মন দিয়ে খেলে যাও।”

হারের ধাক্কা সামলে জয়ে ফেরা প্রসঙ্গে তিনি বলেন,
“গত ম্যাচের পরে আমাদের হাতে তিন দিন ছিল। অনুশীলনে আমাদের অনেক কিছু করার ছিল। তাই প্রচুর কাজ করেছি আমরা। বিশেষ করে কৌশল নিয়ে। দলের ছেলেদের যা যা পরামর্শ দিয়েছি, সেগুলো তারা মেনে চলার ব্যাপারে কোনও দ্বিধা করেনি। সবচেয়ে বড় কথা মাঠে তা করেও দেখিয়েছেও। যে কোনও কোচের কাছেই এটা খুবই আনন্দের।”

একই সাথে তিনি বলেন,
“অন্য দলের কথা বলতে পারব না। আমরা এই ফলের জন্য আবেগে ভেসে যেতে চাই না। প্রথম ম্যাচের পরেও এই ভুল করিনি। তবু দ্বিতীয় ম্যাচে হারতে হয়। পরের ম্যাচগুলোতে এ রকমই ফল করতে হবে আমাদের। ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে। আমাদের ফোকাস বজায় রাখতে হবে। তিন দিন পরেই আবার একটা ম্যাচ। এর পরে সেই ম্যাচে মনোনিবেশ করতে হবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published.