ডার্বির ক্ষত ভুলে পরের ম্যাচে ফোকাস লাল হলুদের

অঞ্জন চ্যাটার্জী, এনএফবিঃ

ডার্বির মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ হারের পরে স্বাভাবিক ভাবেই হতাশ লাল-হলুদ শিবির। তবে হতাশ হয়ে বসে এই ম্যাচের ব্যর্থতার কারণ বিশ্লেষণ করার সুযোগ বা সময় তাদের হাতে বেশি নেই। কারণ, মঙ্গলবারই তাদের পরের ম্যাচে নামতে হবে ওড়িশা এফসি-র বিরুদ্ধে। যারা প্রথম ম্যাচেই বেঙ্গালুরু এফসি-কে ৩-১ গোলে হারিয়ে লিগ টেবলের তিন নম্বরে উঠে এসেছে।

এসসি ইস্টবেঙ্গল কোচ ইতিমধ্যেই স্বীকার করে নিয়েছেন, যথেষ্ট প্রস্তুতির অভাবে মানের দিক থেকে তারা এখনও এটিকে মোহনবাগানের চেয়ে অনেক পিছিয়ে রয়েছে। দলের সহ অধিনায়ক মর্চেলা ও ডিফেন্ডার আদিল খান জানালেন তাদের প্রতিক্রিয়া।

টমিস্লাভ মর্চেলাঃ আমরা ম্যাচটা প্রথম ১০-১৫ মিনিটেই হেরে যাই। এটিকে মোহনবাগানের মতো দুর্দান্ত দলের বিরুদ্ধে এই জায়গা থেকে ঘুরে দাঁড়ানো যায় না। এই হারটা হজম করাও কঠিন। তবে এখন আর এই ম্যাচ নিয়ে বেশি ভেবে লাভ নেই। তিন দিন পরেই আমাদের আর একটা ম্যাচে নামতে হবে। এখন পরের ম্যাচ নিয়ে ভাবাই ভাল। তবে এই ম্যাচের পারফরম্যান্স বিশ্লেষণ করে ভুল শুধরে পরের ম্যাচে আমাদের ভাল খেলতে হবে। পরের ম্যাচ ভাল ভাবে জিতে সমর্থকদের আস্থা অর্জন করতে হবে। আমাদের প্রত্যেককেই ভাল খেলতে হবে এবং দল হিসেবেও ভাল খেলতে হবে। বেশি কিছু বলার নেই। একে অপরকে সাহায্য ও সমর্থন করতে হবে। দু-তিনজন ভাল খেলতে পারেনি বলে যে কেউই ভাল খেলতে পারবে না, তা তো নয়। আমাদের এই ধাক্কাটা খাওয়ার পরে এখন উঠে দাঁড়ানোর সুযোগ সামনে। সেটাই করে দেখাতে হবে আমাদের।

আদিল খানঃ প্রথমার্ধে যে সিস্টেমে খেলেছিলাম আমরা, পাঁচ ব্যাকে খেলা, সেই সিস্টেমে আমরা খুব বেশি অনুশীলন করিনি। দ্বিতীয়ার্ধে যখন ৪-৪-২-এ যাই। প্রস্তুতি ম্যাচেও আমরা এই ছকে খেলেছি এবং এটাই কার্যকরী হয়। বিরতিতে খুব রেগে গিয়েছিলাম। কারণ, প্রথমার্ধে ওদের আমরা পাল্টা চাপে ফেলতে পারিনি। ওরা খুব ভাল দল। গতবারের ফাইনালিস্ট। এএফসি কাপে খেলে এসেছে। প্রত্যেকেই বেশ ফিট। একই কোচের প্রশিক্ষণে একসঙ্গে অনেক দিন ধরে খেলছে। ওদের বিরুদ্ধে খেলাটা তাই বেশ কঠিন ছিল। অরিন্দমের চোটটা আমাদের চিন্তায় ফেলে দিয়েছে। দুর্ভাগ্যজনক!ও আমাদের দলনেতা। গোলে সিংহের মতো পাহারা দেয়। আজকের দিনটা ওর ভাল ছিল না। আশা করি, চোটটা গুরুতর নয়, দ্রুত সেরে উঠবে। ওকে আমাদের গোলে দরকার। জানি সমর্থকেরা আমাদের ওপর খুব চটে রয়েছেন। তাদের প্রত্যেকের কাছেই ডার্বির গুরুত্ব যথেষ্ট। তবে আমাদের আবেদন, আমাদের সঙ্গে থাকুন। আমরা মরশুম শুরুর আগে প্রস্তুতির জন্য যথেষ্ট সময় পাইনি। তবে আমরা পরের ম্যাচগুলোতে ভাল খেলব, ঘুরে দাঁড়াব। অনুশীলনে আরও পরিশ্রম করতে হবে আমাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.