বিনোদনলেটেস্ট

[:en]গ্রাম্য কিশোর থেকে জাতির জনক হয়ে ওঠার জার্নি ‘মুজিব: দ্য মেকিং অফ আ নেশন’[:]

[:en]

এনএফবি, কলকাতাঃ

এক গ্রাম্য কিশোর থেকে জাতির জনক হয়ে ওঠার জার্নি ফুটে উঠেছে শ্যাম বেনেগাল পরিচালিত বায়োপিক ‘মুজিব: দ্য মেকিং অফ আ নেশন’ চলচ্চিত্রে। বৃহস্পতিবার কলকাতায় অনুষ্ঠিত হল সিনেমার বিশেষ প্রদর্শনী। এই স্পেশাল স্ক্রিনিং-এ উপস্থিত ছিলেন মুজিব চরিত্রে অভিনয় করা অভিনেতা আরিফিন শুভ-সহ অনান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বরা।
পরিচালক শ্যাম বেনেগাল এই সিনেমায় মুজিবকে দেখিয়েছেন তাঁর স্ত্রী শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের বর্ণনায়। প্রত্যক্ষ রাজনীতির বাইরে থাকা বঙ্গবন্ধুর জীবনসঙ্গী রেনুই (শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিবকে ভালোবেসে এই নামেই ডাকতেন শেখ মুজিবর রহমান) রাষ্ট্রনায়কের জীবনচিত্রে কথকের ভূমিকা পালন করেছেন। যা বিশ্ব চলচ্চিত্রের এক অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।
কিংবদন্তী রাজনীতিকের ব্যক্তিগত এবং পারিবারিক জীবন অপরিসীম যত্নে চিত্রায়িত হয়েছে এখানে। প্রাণপ্রিয় রেনুই ছিলেন জাতির জনকের পরিবারের ‘কম্যান্ডার’। শুধু তাইই নয় আটপৌরে গৃহবধূ থেকে বঙ্গবন্ধুর গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের পরামর্শদাতা হয়ে উঠেছিলেন রেনু। তাঁদের প্রেম, মান অভিমান দর্শকের মনে এক অনুরণন তৈরি করে। একইসঙ্গে বায়োপিকে দেখা যায়, বিশ্বের বুকে এক নতুন দেশের স্রষ্টা জেলে বসে তাঁর নবপরিণীতা কন্যা-জামাতার সামনে নিজের অসহায়ত্বের কথা অকপটে স্বীকার করছেন।

প্রিমিয়ার শো-তে উপস্থিত অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের সঙ্গে অভিনেতা শুভ। নিজস্ব চিত্র

জানা যায়, কীভাবে দেশের রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে এক নেতার পারিবারিক জীবনচিত্রও বদলে যায়। স্ত্রী সন্তানদের সঙ্গে রাষ্ট্রনেতার সম্পর্ক কেমন তা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই উপেক্ষিত হয়। যা এই সিনেমায় গুরুত্ব পেয়েছে সবমহিমায়। তবে শুধু ব্যক্তিগত ও পারিবারিক মুজিবই যে এই বায়োপিকে প্রধান তা নয়। পারিবারিক অনুষঙ্গে বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক আদর্শ, নেতৃত্ব, দেশের পরিস্থিতি এবং সেই অনুযায়ী সিদ্ধান্তগ্রহনের দৃশ্যগুলি থেকে উপলব্ধি করা যায় দূরদৃষ্টি সম্পন্ন রাষ্ট্রনেতাকে।

“মুজিব বাংলাদেশ জাতিকে পাকিস্তানের অংশ থেকে স্বাধীন করেছিলেন। তিনি শুধু একজন বিচক্ষণ রাজনীতিবিদই ছিলেন না, সমানভাবে তিনি ছিলেন একনিষ্ঠ একজন পারিবারিক মানুষ। তাঁর ঘরোয়া ও রাজনৈতিক উভয় জীবনই ছিল এক পরিপূর্ণ ব্যক্তির দৃষ্টান্তস্বরূপ যা বেশিরভাগ সফল রাজনীতিবিদই পরিচালনা করতে সক্ষম নন। এই চলচ্চিত্রে তাঁর জীবন বর্ণনা করা যথেষ্ট অনুপ্রেরণাদায়ক ছিল।“ বলেছেন পরিচালক শ্যাম বেনেগাল।

নিজস্ব চিত্র

এই সিনেমায় বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ, নুসরাত ইমরোজ তিশা, নুসরাত ফারিয়া, চঞ্চল চৌধুরী, রিয়াজ আহমেদ, ফজলুর রহমান বাবু, তৌকীর আহমেদ এবং সিয়াম আহমেদ-সহ বিশিষ্ট অভিনেতারা। চিত্রনাট্য লিখেছেন শামা জাইদি এবং অতুল তিওয়ারি, আকাশদীপ পান্ডে সিনেমাটোগ্রাফি পরিচালনা করেছেন, অসীম সিনহা দক্ষতার সাথে ছবিটি সম্পাদনা করেছেন। শাম কৌশল দ্বারা সংগঠিত অ্যাকশন সিকোয়েন্স, বিষ্ণু নিষাদের শিল্প নির্দেশনা, নীতীশ রায়ের প্রোডাকশন ডিজাইন, পিয়া বেনেগালের ডিজাইন করা পোশাক এবং শান্তনু মৈত্রের সঙ্গীত সহ, চলচ্চিত্রটিতে একটি দক্ষ প্রযুক্তিগত টিম কাজ করেছে।

ন্যাশনাল ফিল্ম ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন ইন্ডিয়া এবং বাংলাদেশ ফিল্ম ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন যৌথভাবে প্রযোজিত দুই দেশের মধ্যে প্রথম সহ-প্রযোজনার ভিত্তিতে ‘মুজিব’ তৈরি করা হয়েছে। বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী মুজিবকন্যা শেখ হাসিনা ছবিটি দেখে অভিভূত।

YouTube player

এনএফডিসি প্যানোরামা স্টুডিওস ইন্টারন্যাশনালের সঙ্গে আজ ভারত ও বিদেশে চলচ্চিত্রটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। ‘মুজিব: দ্য মেকিং অফ আ নেশন’ হিন্দি এবং বাংলা ভাষায় ২৭ অক্টোবর, ২০২৩-এ ভারতে মুক্তি পাচ্ছে।

[:]